রবিবার, জুন 16, 2024

ঢাকার তাপ কমাতে ২ লাখ গাছ লাগাবে উত্তর সিটি

Must read

- Advertisement -

ঢাকা শহরের তাপমাত্রা কমানোর উদ্যোগ হিসেবে দুই বছরে ২ লাখ গাছ লাগানোর ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বুধবার (৩ মে) এক অনুষ্ঠানি তিনি এ কথা বলেন।

এদিকে, ঢাকা উত্তর সিটিতে এশিয়ার প্রথম শহর হিসেবে একজন চিফ হিট অফিসার (সিএইচও) নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিশ্বের দ্রুত বর্ধনশীল শহরগুলির মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি তাপদাহ (হিট অ্যাকশন) নিয়ে কাজ করার জন্য আশট-রকের গ্লোবাল চ্যাম্পিয়নদের দলে যোগদান করেছে। এশিয়ায় তাপমাত্রা বৈশ্বিক তাপমাত্রার গড় হারের দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এশিয়ার শহরগুলিতে গরমের তীব্রতা প্রতিনিয়ত বাড়ছে।ঢাকা শহরের তীব্র তাপপ্রবাহের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় অ্যাড্রিয়েন আরশট রকফেলার ফাউন্ডেশন রেজিলিয়েন্স সেন্টারের গ্লোবাল চ্যাম্পিয়ন্স ফর হিট অ্যাকশন প্ল্যাটফর্মের অফিসিয়াল সদস্য হিসেবে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

ঢাকা শহরের তাপমাত্রা কমাতে ডিএনসিসি এবং অ্যাড্রিয়েন আরশট রকফেলার ফাউন্ডেশন যৌথভাবে কাজ করবে। কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ঢাকা উত্তর সিটিতে এশিয়ার প্রথম শহর হিসেবে বুশরা আফরিনকে চিফ হিট অফিসার পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে ডিএনসিসি এবং যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক অ্যাড্রিয়েন আশট রকফেলার ফাউন্ডেশনের সমঝোতা চুক্তি হয়েছে।

বুধবার (৩ মে) সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে Launching Ceremony of Building Urban Heat Resilience: An International Collaboration between DNCC and The Adrienne Arsht Rockefeller Foundation Resilience Center (ARSHT- ROCK) শিরোনামের এক অনুষ্ঠানে এসব তথ্য উঠে আসে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, গবেষণায় উঠে এসেছে ২০৫০ সালের মধ্যে তাপপ্রবাহ বিশ্বব্যাপী প্রায় ৩.৫ বিলিয়নের বেশি মানুষের জীবন ও জীবিকায় মারাত্মক প্রভাব ফেলবে এবং তাদের মধ্যে অর্ধেকের বেশি শহরে বসবাসকারী মানুষ। তীব্র তাপপ্রবাহ শহরগুলির জন্য বেশি বিপজ্জনক এবং প্রতি বছর শহরে ক্রমাগত ঝুঁকি বেড়েই চলেছে। ঘনবসতিপূর্ণ হওয়ায় ঢাকা শহর তাপ প্রবাহের ফলে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। পাশের গ্রাম অঞ্চলের তুলনায় ঢাকা উত্তরের তাপমাত্রা প্রায় ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি।

তারা বলেন, এই চরম তাপ পরিস্থিতি নগরবাসীর জীবনকে হুমকির মুখে ফেলছে এবং শহরের বার্ষিক উৎপাদনের প্রায় ৮ শতাংশেরও বেশি শ্রম উৎপাদনশীলতা কমছে। ২০৫০ সাল নাগাদ গরমকালের সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ার অনুমান করা হচ্ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে নারী ও শিশুদের উপর এর বিরূপ প্রভাব পরবে। সিএইচও হিসেবে বুশরা আফরিন প্রচণ্ড গরমের মধ্যে ঢাকা উত্তরকে নিরাপদ করার জন্য নেতৃত্বে দিবে। তাপমাত্রা কমাতে তিনি শহরব্যাপী নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবেন। ঢাকা উত্তরের জনগণের মধ্যে তাপ সচেতনতা বৃদ্ধি, সুরক্ষা প্রচেষ্টা ত্বরান্বিতকরণসহ নতুন নতুন কাজ করবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, আজ আমার শহরের জন্য একটি বিশেষ দিন। শহরের তাপমাত্রা কমাতে ডিএনসিসির সাথে আরশট-রক ফাউন্ডেশন যৌথভাবে কাজ করবে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের জন্য একজন চিফ হিট অফিসার (সিএইচও) নিয়োগ দেওয়া হয়েছে যিনি আরশট-রকের সহযোগিতায় শহরের তাপমাত্রা কমাতে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করবেন।

মেয়র বলেন, ঢাকা শহরের তাপমাত্রা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। দাবদাহের ফলে শহরের মানুষের জীবন ও জীবিকা আজ হুমকিতে। মানুষের কর্মক্ষমতা কমে যাচ্ছে, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ছে। শ্রমজীবী মানুষের কর্মঘণ্টা কমে যাওয়ায় আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। আমি আশা করছি, ডিএনসিসি এবং আরশট-রকের যৌথ উদ্যোগ তামমাত্রা কমানোর মাধ্যমে একটি নিরাপদ ও শীতল ঢাকা গড়তে সক্ষম হবে।

তিনি বলেন, রাজধানীর মিরপুরের কালসিতে ১৮ বিঘা বেদখল জমি উদ্ধার করে মাঠ ও শিশু পার্ক হচ্ছে এটা একটা বিরাট সাফল্য। বেদখল জায়গা উদ্ধার করে প্রকৃতি নির্ভর ঢাকা তৈরি করা হচ্ছে।  ঢাকা শহরের তাপমাত্রা কমাতে গাছ লাগানোর কোন বিকল্প নেই। আগামী দুই বছরের মধ্যে উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় দুই লাখ গাছ লাগানো হবে।

চিফ হিট অফিসার বুশরা আফরিন বলেন, আমি শহরের প্রচণ্ড  তাপ থেকে মানুষ ও প্রকৃতিকে রক্ষা করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বিভিন্ন শহরের নেতা এবং বিশেষজ্ঞদের একটি বৈশ্বিক সংগঠনে যোগ দিতে পেরে আমি রোমাঞ্চিত। ঢাকার একজন স্থানীয় বাসিন্দা হিসেবে আমি জানি তীব্র তাপপ্রবাহ মোকাবিলায় জরুরি পদক্ষেপের বিকল্প নেই। ঢাকা শহরে তাপমাত্রা উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে বিশেষ করে স্বল্প আয়ের শ্রমজীবী মানুষ, বস্তিবাসী, অভিবাসী এবং নারী ও শিশুরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত  হচ্ছে।

আরশট রকের পরিচালক ও সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্যাথি বাঘম্যান ম্যাকলিওড বলেন, তীব্র তাপপ্রবাহ সারা বিশ্বের শহরগুলিতে একটি প্রেসার কুকারের মতো কাজ করছে এবং ঢাকার উত্তরে জনসংখ্যা বেশি হওয়ায় এখানে ঝুঁকি আরো বেশি। তাই ঢাকা উত্তরে একজন চিফ হিট অফিসার (সিএইচও) নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তার নেতৃত্বে এই শহরে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। আমি বিশ্বাস করি, বুশরা আফরিনের ভূমিকা সমগ্র দক্ষিণ এশিয়ায় শহরগুলির জন্য একটি রোল মডেল হিসাবে কাজ করবে। আরশট-রক ফাউন্ডেশন এই উদ্যোগের অংশীদার হতে পেরে গর্বিত এবং আরশট-রক ফাউন্ডেশন ডিএনসিসির মানুষের সুরক্ষায় সম্ভাব্য সহযোগিতা প্রদান করবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য মাকসুদ কামাল প্রমুখ।

- Advertisement -
- Advertisement -

More articles

- Advertisement -

Latest article