শনিবার, জুন 15, 2024

বাবাকে বাঁচাতে নিজের লিভার দিলেন ছেলে

Must read

- Advertisement -

লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত বাবা বেলাল হোসেন তাঁর ছেলের দেওয়া লিভারে প্রাণ ফিরে পেলেন। ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের গুরুদাসপুরে।  তিনি উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের এবং শ্রীপুর-চরপিপলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।  

বাবাকে বাঁচাতে নিজের লিভার দিলেন ছেলে | লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত বাবা বেলাল হোসেন তাঁর ছেলের দেওয়া লিভারে প্রাণ ফিরে পেলেন। ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের গুরুদাসপুরে।  তিনি উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের এবং শ্রীপুর-চরপিপলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।  

জানা যায়, বেলাল হোসেন প্রায় আড়াই বছর ধরে লিভারের জটিল রোগে ভুগছিলেন। এই রোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে লিভার প্রতিস্থাপন করার পরামর্শ দেন ভারতের চেন্নাইয়ের চিকিৎসকরা। কিন্তু লিভার প্রতিস্থাপনের জন্য দাতা খুঁজে পাওয়া কঠিন ও কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। বেলাল হোসেনের এই দুঃসময়ে ঢাল হয়ে দাঁড়ায় তারই ছেলে জাকির হাসান। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাবাকে প্রাণে বাঁচানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। 

জাকির রুয়েট থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে ওয়ালটনে উচ্চ বেতনে চাকরি করছেন। সামনে তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ। কিন্তু বর্তমান কিংবা ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে বাবার জীবন রক্ষাই তার কাছে মুখ্য হয়ে ওঠে। সবকিছু পেছনে ফেলে নিজের শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ও দুষ্প্রাপ্য অঙ্গ লিভারের উল্লেখযোগ্য অংশ বাবাকে দিয়েছেন জাকির হাসান। 

জানা যায়- মানুষের লিভার সাধারনত ১০-১২ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে ৩-৪ সেন্টিমিটার পর্যন্ত লিভার রোগীর শরীরে প্রতিস্থাপন করলে কারো কোনো ক্ষতি হয় না বরং উভয়ের লিভার স্বাভাবিক পর্যায়ে বৃদ্ধি পায়। 
সম্প্রতি ভারতের চেন্নাইয়ের একটি হাসপাতালে বাবা ও ছেলের সফলভাবে অপারেশন সম্পন্ন হয়। তারা এখন ঝুঁকিমুক্ত। পরিবারের জন্য বাবারা সমসময়ই সুপার হিরো। কিন্তু সন্তানরাও পরিবার ও সমাজের কাছে কখনো কখনো হিরো হয়ে ওঠে। তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ জাকির হাসান। এ বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় খুবজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম দোলন বলেন- হাসান প্রমাণ করলেন সদিচ্ছা ও ভালোবাসা থাকলে জন্মদাতা পিতার জন্য ছেলেরা অনেক কিছু করতে পারে। সমাজে পিতার জন্য জাকির হাসানের এই অবদান সত্যিই বিরল।

- Advertisement -
- Advertisement -

More articles

- Advertisement -

Latest article