শনিবার, জুন 15, 2024

বাংলাদেশের জার্সিতে শীঘ্রই দেখা যেতে পারে হামজা ও দিয়াবাতেকে

Must read

- Advertisement -

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইংলিশ ফুটবলার হামজা চৌধুরী একদিন বাংলাদেশের হয়ে খেলবেন, কিছুদিন আগে বাংলাদেশ কোচ হাভিয়ের কাবরেরার এই আশাবাদ দ্রুত সত্যি হওয়ার সম্ভাবনা জেগেছে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার জানিয়েছেন, আগামী সেপ্টেম্বরের ফিফা উইন্ডোতে হামজাকে বাংলাদেশ দলে খেলানোর জন্য কাজ শুরু করেছেন তারা।

বাংলাদেশের জার্সিতে শীঘ্রই দেখা যেতে পারে হামজা ও দিয়াবাতেকে | বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইংলিশ ফুটবলার হামজা চৌধুরী একদিন বাংলাদেশের হয়ে খেলবেন, কিছুদিন আগে বাংলাদেশ কোচ হাভিয়ের কাবরেরার এই আশাবাদ দ্রুত সত্যি হওয়ার সম্ভাবনা জেগেছে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার জানিয়েছেন, আগামী সেপ্টেম্বরের ফিফা উইন্ডোতে হামজাকে বাংলাদেশ দলে খেলানোর জন্য কাজ শুরু করেছেন তারা।

বাফুফের ‘কাজ শুরু’ হয়েছে মোহামেডানের হয়ে খেলা মালির ফরোয়ার্ড সুলেমানে দিয়াবাতেকে নিয়েও। এছাড়া বসুন্ধরা কিংসের ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রবসন দি সিলভা রবিনিয়োর গায়েও বাংলাদেশের জার্সি তুলে দেওয়ার ভাবনা আছে বলে জানিয়েছেন বাফুফে সাধারণ সম্পাদক।

হামজার বাংলাদেশের হয়ে খেলার আগ্রহের বিষয়টি কদিন আগে বেশ জোরোশোরে আলোচনায় আসে। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল লেস্টার সিটির এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার বাংলাদেশি পাসপোর্ট পাওয়া নিয়ে ঝামেলায় পড়েছেন বলেও খবর আসে গণমাধ্যমে।

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা হামজা ২০১৫ সালে যোগ দেন লেস্টার সিটিতে। পরের বছর ধারে যোগ দেন বার্টন অ্যালবিয়নে; সেখানে কাটান ২০১৭ পর্যন্ত। গত মৌসুমে ওয়াটফোর্ডে ধারে খেলেছেন তিনি।

বাফুফে সাধারণ সম্পাদক রোববার জানালেন, হামজার পাসপোর্ট সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী হওয়ার কথা। এছাড়া ২০১৯ সাল থেকে মোহামেডানের হয়ে খেলা ৩৩ বছর বয়সী দিয়াবাতেকে নাগরিকত্ব দিয়ে বাংলাদেশের হয়ে খেলানোর বিষয়টি নিয়েও কাজ চলছে বলে জানান তুষার।

“আপনারা জানেন, ইতোমধ্যেই আমাদের ন্যাশনাল টিমস কমিটির চেয়ারম্যান ইংল্যান্ডে অবস্থিত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে কথা বলেছেন। এরপর রাষ্ট্রদূত নিজে হামজার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছেন। এরপর হামজার পরিবার যখন দূতাবাসে যাবেন, তখন তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে। আমরাও তাদের সঙ্গে যোগাযোগের মধ্যে রয়েছি। কাগজ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। যেন দ্রুত তিনি অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে পারেন আমরা সেই ব্যবস্থা করেছি।”

“আমরা ইতোমধ্যেই জামাল, তারিক কাজী, এলিটাকে নিয়ে কাজ করেছি। পাসপোর্ট হওয়ার পরের পদক্ষেপ নিয়ে আমরা ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছি। দিয়াবাতের সঙ্গে আমরা বসেছিলাম। তার কাছ থেকে আমাদের কিছু বিষয় জানার ছিল। যেমন এলিটার পাসপোর্ট নাইজেরিয়ার কর্তৃপক্ষের কাছে হ্যান্ডওভার করে বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিতে হয়েছে। তিনি (দিয়াবাতে) জানিয়েছেন যে, তিনি দৈত্ব নাগরিকত্ব নিতে পারবেন। আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছি। বাংলাদেশে অবস্থানকালে তার সনদের জন্য। কারণ ফিফার নিয়মানুযায়ী এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।”

দিয়াবাতের তুলনায় হামজাকে বাংলাদেশের পক্ষে খেলানো বাফুফের জন্য সহজ। কেননা, ইংল্যান্ড প্রবাসী ২৬ বছর বয়সী এই ফুটবলারের মা বাংলাদেশি। তুষার জানালেন, হামজার বিষয়ে আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে সুখবর দিতে চান তারা।

“আমরা দুই ফুটবলারের (হামজা ও দিয়াবাতে) জন্যই কাজ করছি। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যেই ভালো খবর দিতে পারব। হামজার একটা সুবিধা হচ্ছে তার মা বাংলাদেশি। ফলে তার ক্ষেত্রে বিষয়টা ভিন্ন। বাংলাদেশের পাসপোর্ট পাওয়ার পর দৈত্ব নাগরিকত্বের জন্য তার আবেদন করতে হবে। এরপর তিনি বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পারবেন। আমরা ইতোমধ্যে সেই কাজও এগিয়ে রাখছি। আগামী সেপ্টেম্বরের ফিফা উইন্ডোকে লক্ষ্য করেই কাজ করছি। আশা করি, সেই উইন্ডোতে হামজা বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পারবেন।”

কিংসের ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রবিনিয়ো এখানকার ঘরোয়া ফুটবলে পা রাখেন ২০২০ সালে। সেই থেকে আলো ছড়িয়ে চলেছেন এই ফরোয়ার্ড। কিংসের টানা পঞ্চম লিগ শিরোপা জয়ের নেপথ্যের কারিগরদের একজন ২৮ বছর বয়সী এই ফুটবলার। এই ব্রাজিলিয়ানকে লাল-সবুজের জার্সিতে খেলানোর ভাবনা আছে বাফুফের। তবে বিষয়টি রবিনিয়োর আগ্রহের ওপর নির্ভর করছে বলেও জানালেন তুষার।

“রবসন… আসলে (তার বিষয়ে) আরও একটু সময় নিয়ে কাজ করতে হবে। কারণ আগামী মৌসুমে তার পাঁচ বছর পূর্ণ হবে। তখন তার ইচ্ছা থাকলে আমরা তাকে নিয়েও কাজ করব।”

- Advertisement -
- Advertisement -

More articles

- Advertisement -

Latest article