বৃহস্পতিবার, জুন 13, 2024

গাড়ি রপ্তানিতে জাপানকে হটিয়ে শীর্ষে চীন

Must read

- Advertisement -
গাড়ি রপ্তানিতে জাপানকে হটিয়ে শীর্ষে চীন | গাড়ি রপ্তানিকারক হিসেবে ২০২৩ সালে জাপানকে হটিয়ে বিশ্বের শীর্ষস্থানে উঠে এসেছে চীন। চায়না প্যাসেঞ্জার কার অ্যাসোসিয়েশন (সিপিসিএ) এ তথ্য দিয়েছে। গত বছর চীনের বিদ্যুচ্চালিত গাড়ি কোম্পানি বিওয়াইডি ও চেরির ব্যবসা ভালো হওয়ায় গাড়ি রপ্তানিকারক দেশগুলোর শীর্ষে উঠে এসেছে চীন।

গাড়ি রপ্তানিকারক হিসেবে ২০২৩ সালে জাপানকে হটিয়ে বিশ্বের শীর্ষস্থানে উঠে এসেছে চীন। চায়না প্যাসেঞ্জার কার অ্যাসোসিয়েশন (সিপিসিএ) এ তথ্য দিয়েছে। গত বছর চীনের বিদ্যুচ্চালিত গাড়ি কোম্পানি বিওয়াইডি ও চেরির ব্যবসা ভালো হওয়ায় গাড়ি রপ্তানিকারক দেশগুলোর শীর্ষে উঠে এসেছে চীন।

সিপিসিএ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছে, ২০২৩ সালে চীন বিশ্বের শীর্ষ গাড়ির বাজার থেকে শীর্ষ গাড়ি রপ্তানিকারক দেশ হয়ে উঠেছে। গত বছর চীনের নতুন গাড়ি রপ্তানি ৬২ শতাংশ বেড়েছে। ২০২৩ সালে মোট ৩৮ লাখ ৩০ হাজার নতুন গাড়ি রপ্তানি করেছে চীন। অন্যদিকে জাপানের শুল্ক বিভাগের তথ্যানুসারে, গত বছরের প্রথম ১১ মাসে দেশটি যাত্রীবাহী নতুন গাড়ি বিক্রি করেছে ৩৫ লাখ, পুরোনো গাড়ি ছাড়া। সিপিসিএর হিসাব সরকারি পরিসংখ্যান নয়। দেশটির শুল্ক বিভাগ কাল শুক্রবার সরকারি পরিসংখ্যান প্রকাশ করবে।

সিপিসিএর তথ্যানুসারে, ২০২৩ সালের নতুন-পুরোনো মিলিয়ে চীন সর্বমোট গাড়ি রপ্তানি করেছে ৫২ লাখ ৬০ হাজার ইউনিট, যার আর্থিক মূল্য প্রায় ১০২ বিলিয়ন বা ১০ হাজার ২০০ কোটি মার্কিন ডলার। অন্যদিকে গত বছর নতুন-পুরোনো মিলিয়ে জাপানের মোট গাড়ি রপ্তানি করেছে ৪৩ লাখ ইউনিট।

অর্থাৎ চীন এখন বিশ্বের গাড়িশিল্পের নতুন মোড়ল হয়ে উঠেছে, যদিও গত বছর তাদের এই উত্থানের কারণ বিদ্যুচ্চালিত গাড়ি বিক্রি বেড়ে যাওয়া। গত বছরের শেষ বা চতুর্থ প্রান্তিকে চীনা কোম্পানি বিওয়াইডি বিদ্যুচ্চালিত গাড়ির বাজারে টেসলাকে হটিয়ে শীর্ষ স্থানে উঠে আসে; যদিও তাদের গাড়ি বিক্রি হয়েছে মূলত চীনের বাজারে। চীনের গাড়ি রপ্তানি বৃদ্ধির পেছনে টেসলারও ভূমিকা আছে। গত বছর টেসলা চীনের কারখানায় উৎপাদিত ৩ লাখ ৪৪ হাজার ৭৮টি গাড়ি রপ্তানি করেছে।

এদিকে গাড়ির বাজারে চীনের উত্থান নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলো আতঙ্কিত। তাদের ভয়, চীনের এই উত্থানে তাদের দেশের গাড়ি কোম্পানিগুলো বিপাকে পড়বে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে ইউরোপীয় কমিশন চীনের বিদ্যুচ্চালিত গাড়ির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে। তাদের অভিযোগ, চীনের এই গাড়ি কোম্পানিগুলো সরকারের ভর্তুকি পায়, সে জন্য তারা বেইজিংকে সুরক্ষাবাদী আখ্যা দেয়। অন্যদিকে ওয়ালস্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনের বিদ্যুচ্চালিত গাড়িসহ বেশ কিছু পণ্যে শুল্ক বাড়ানোর চিন্তা করা হচ্ছে।

রপ্তানির পাশাপাশি চীনের অভ্যন্তরীণ বাজারেও গাড়ি বিক্রি বেড়েছে। ২০২৩ সালে দেশটির অভ্যন্তরীণ গাড়ি বিক্রি ৫ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে ২১ দশমিক ৯৩ মিলিয়ন বা ২ কোটি ১৯ লাখ ৩০ হাজার ইউনিটে উন্নীত হয়েছে। চীনের অর্থনৈতিক পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় ক্রেতা টানতে গাড়ি কোম্পানিগুলো বড় ধরনের ছাড়ও দিয়েছে।

২০২২ সালে চীনে শতভাগ ব্যাটারিচালিত গাড়ি বিক্রি বেড়েছিল ৭২ শতাংশ; ২০২৩ সালে তা বেড়েছে ২০ দশমিক ৮ শতাংশ। এদিকে ২০২৪ সালে চীনের বাজারে দেশীয় ব্র্যান্ডের গাড়ি বিক্রি ৬৩ শতাংশ বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চীনের বিওয়াইডি কোম্পানির ৭ দশমিক ৯৮ শতাংশ মালিকানা ওয়ারেন বাফেটের বার্কশায়ার হাথাওয়ে কোম্পানির। গত বছর এই কোম্পানি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া ও ইউরোপে আগ্রাসী বিপণন চালিয়েছে, যদিও তাদের বেশির ভাগ বিক্রি হয়েছে চীনে। দেশের ভেতরে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে তারা পরিবেশকদের বিপুল হারে প্রণোদনা দিয়েছে। তবে বিওয়াইডির তুলনায় টেসলার বিক্রয়ব্যবস্থা অধিকতর দক্ষ বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এদিকে গত বছর চীনের বাজারে বিশ্বের অন্যান্য দেশের বেশির ভাগ গাড়ি কোম্পানির বিক্রি কমেছে। চীনের বিদ্যুচ্চালিত গাড়ির বাজারে নতুন নাম স্মার্টফোন কোম্পানি শাওমি। গত মাসেই তারা প্রথম বাজারে গাড়ি এনেছে এবং ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে, তারা বিশ্বের শীর্ষ পাঁচটি গাড়ি কোম্পানির একটি হতে চায়।

- Advertisement -
- Advertisement -

More articles

- Advertisement -

Latest article