শনিবার, জুন 15, 2024

ওমরাহ পালনে গিয়ে ১১ বছর আগে হারানো সন্তানকে ফিরে পেলেন মা!

Must read

- Advertisement -
ওমরাহ পালনে গিয়ে ১১ বছর আগে হারানো সন্তানকে ফিরে পেলেন মা! | সৌদি আরবে পবিত্র ওমরাহ পালন করতে গিয়ে ১১ বছর আগে নিজের হারিয়ে যাওয়া সন্তানকে ফিরে পেয়েছেন এক মা। এ ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও। সৌদির রিয়াদে ঘটা এ ঘটনার পর অনেকে বলছেন, এ যেন আল্লাহর দরবারে গিয়ে প্রার্থনার ফল।

সৌদি আরবে পবিত্র ওমরাহ পালন করতে গিয়ে ১১ বছর আগে নিজের হারিয়ে যাওয়া সন্তানকে ফিরে পেয়েছেন এক মা। এ ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও। সৌদির রিয়াদে ঘটা এ ঘটনার পর অনেকে বলছেন, এ যেন আল্লাহর দরবারে গিয়ে প্রার্থনার ফল।

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও’র কথা উল্লেখ করে গেল বুধবার (২০ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এ খবর জানায় সংবাদমাধ্যম গালফ নিউজ।

জানা গেছে, ১১ বছর আগে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধে ভয়াবহ বোমা হামলার শিকার হয় শিশু সাফওয়ানের পরিবার। নির্বিচার হামলায় ধ্বংস হয়ে যায় তাদের পুরো গ্রাম। নিহত হন শত শত মানুষ। সে সময় থেকেই কোথাও আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না ছোট্ট সাফওয়ান আনসারীকে।

বলা হচ্ছে, হারিয়ে যাওয়ার পর বেশ কয়েকজনের হাত ঘুরে সবশেষ একটি পরিবারে আশ্রয় পায় শিশু সাফওয়ান। তারা নিজেদের সন্তানের মতোই বড় করে তাকে। চলতি রমজানে ওমরাহ পালনে সৌদি আরব যান সাফওয়ানের পালক দম্পতি। ভাগ্যক্রমে একই সময়ে ওমরাহ করতে আসেন সাফওয়ানের জন্মদাত্রী মা। সেখানে নাটকীয়ভাবে তাদের দেখা হয়। সাফওয়ানকে ফিরে পেয়ে যেন নতুন করে প্রাণ ফিরে পান তার মা। অবসান হয় এক যুগের খোঁজের। মা-ছেলের মিলনের সেই দৃশ্য ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে। 

মূলত বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে সাফওয়ানকে খুঁজে বেড়াচ্ছিলেন তার মা। অন্যদিকে যাদের কাছে সে বড় হচ্ছিল, তাদেরও চাওয়া ছিল শিশুটি যেন তার পরিবার খুঁজে পায়। আর এ জন্য তার ছবি ও তথ্য বেশ কিছু সংস্থার ওয়েবসাইটেও দিয়েছিল পরিবারটি।

অবশেষে সংস্থাগুলো যখন মা-ছেলের পরিচয় শনাক্ত করতে সক্ষম হয়, তখন উভয় পরিবারই মক্কায় ওমরাহ পালন করছিল। বিষয়টি তাদের জানানোর পর, মা-সন্তানের পুনর্মিলনের ব্যবস্থা করা হয়। 

উল্লেখ্য, সৌদি সরকারের গত মে মাসে ঘোষিত এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশটিতে প্রায় সাড়ে চার লাখ সিরিয়ান রয়েছে।

- Advertisement -
- Advertisement -

More articles

- Advertisement -

Latest article