শনিবার, জুন 22, 2024

‘ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের নোবেল’ পেলেন বাংলাদেশি তাহের

Must read

- Advertisement -
‘ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের নোবেল’ পেলেন বাংলাদেশি তাহের | যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল একাডেমি অব ইঞ্জিনিয়ারিং (এনএই) সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি প্রফেসর ড. তাহের সাইফ। এনএই সদস্য নির্বাচিত হওয়াকে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে সর্বোচ্চ পেশাগত পুরস্কার বা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের নোবেল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল একাডেমি অব ইঞ্জিনিয়ারিং (এনএই) সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি প্রফেসর ড. তাহের সাইফ। এনএই সদস্য নির্বাচিত হওয়াকে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে সর্বোচ্চ পেশাগত পুরস্কার বা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের নোবেল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

জীববিজ্ঞান ও ম্যাটেরিয়াল সায়েন্সের এ্যপ্লিকেশন দিয়ে ক্ষুদ্র স্কেলে পদার্থের যান্ত্রিক বৈশিষ্ট্যগুলিকে চিহ্নিত করার জন্য এ পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

প্রতি বছর বিশ্বের ইঞ্জিনিয়ারিং এবং সায়েন্স ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এর সব বিভাগ থেকে একশর মতো সদস্য নির্বাচিত হন। এ বছর যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১১৪ ও যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে থেকে ২১ জনকে সদস্য নির্বাচিত করা হয়েছে। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে নোবেল পুরস্কার না থাকায় একেই ইঞ্জিনিয়ারিং এর নোবেল বলে ধরা হয়।

ড. তাহের সাইফ যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ইলিনয় এট আরবানা-শ্যাম্পেইন এর মেকানিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর প্রফেসর। তিনি বুয়েটে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এ অনার্স করেছেন। পরে ওয়াশিংটন স্টেট ইউনিভার্সিটি থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে মাস্টার্স ও কর্নেল ইউনিভার্সিটি থেকে থিওরেটিকাল অ্যান্ড এপ্লাইড মেকানিকসে পিএইচডি এবং ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পোস্টডক সম্পন্ন করেন।

আগামী সেপ্টেম্বরে নতুন এই ১১৪ জনের হাতে পুরস্কার তুলে দেবে ন্যাশনাল একাডেমি অব ইঞ্জিনিয়ারিং কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশিদের মধ্যে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে নোবেল পাওয়াদের মধ্যে তৃতীয় ব্যক্তি সাইফ। এর আগে ১৯৭৩ সালে স্থপতি ড. ফজলুর রহমান খান এই পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন । তার ২৮ বছর পর ২০০১ সালে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়েরে এ পুরস্কার পান ড.ফজলে হুসেইন।

- Advertisement -
- Advertisement -

More articles

- Advertisement -

Latest article